ভালো মানের আর্টিকেল তৈরি করার কিছু পরামর্শ

0
66

ভালো মানের আর্টিকেল তৈরী করার জন্য প্রথমে আপনাকে কয়েকটি বিষয় নিয়ে চিন্তা-গবেষণা করতে হবে।

এই গুণগুলি যদি আপনার মধ্যে না থাকে তাহলে আপনি কখনোই ভালো মানের আর্টিকেল তৈরী করতে বা লিখতে পারবেন না।

ভালো মানের আর্টিকেল তৈরী করার জন্য কয়েকটা পরামর্শ নিচে তুলেধরা হল। পরামরশগুলি মনোযোগ সহকারে পড়ুন তাহলে বুঝতে পারবেন ইনশাআল্লাহ ।

১। আর্টিকেল লেখার আগে চিন্তা করুন

আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখতে চাচ্ছেন সে বিষয়ে খুব ভালকরে চিন্তা করুন।

আপনার আর্টিকেল দারা আপনি আপনার পাঠকদের কি বঝাতে চাচ্ছেন সেটা নিয়ে কিছুক্ষণ চিন্তাভাবনা করুন।

এমনভাবে আর্টিকেল লিখুন যেন আপনার পাঠকরা আর্টিকেল পড়ে সহজেই আপনার আর্টিকেল এর মূলভাব বুঝতে পারে।

২। শিরোনাম ব্যবহার করুন

একটি আর্টিকেল এর পরিচয় বহন করে তার শিরোনাম। সুতারং ভাল মানের আর্টিকেল লিখতে হলে আপনাকে অবশ্যই আর্টিকেল এর শিরোনাম লিখতে হবে।

এটি শুধুমাত্র পড়ার ক্ষেত্রে নয় বরং এসইও (SEO) এর ক্ষেত্রেও খুব গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

আপনি যদি চান গুগল সার্চে পাঠকগণ আপনার আর্টিকেলটি খুজে পাক, তাহলে আপনাকে অবশ্যই ভালমানের শিরোনাম বা টাইটেল ব্যবহার করতে হবে।

৩। অনুচ্ছেদ বা প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করুন

সবাই কমবেশি অনুচ্ছেদ বা প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করে, কিন্তু অধিকাংশ লেখকই সঠিকভাবে এটা ব্যবহার করেনা। যারফলে আর্টিকেল এর সঠিক মান পাওয়া যাইনা।

সুন্দর দেখা যাবে সেজন্য কখনই প্রত্যেকটা নতুন বাক্য নতুন নতুন লাইনে লিখবেন না।

কারন, হয়তোবা এটা দ্বারা আপনার আর্টিকেলটা দেখতে সুন্দর হতে পারে কিন্তু এতে আপনার আর্টিকেল এর ভাবমর্ম হারিয়ে যাবে।

প্রত্যেকটা প্যারাগ্রাফ নতুন নতুন ধারনার উপর লেখা উচিত।

৪। নিয়মিত আর্টিকেল লিখুন

আপনার ওয়েবসাইট এ নিয়মিত আর্টিকেল প্রকাশ করুন। কারন আপনি যদি নিয়মিত আর্টিকেল প্রকাশ করেন, তাহলে গুগল আপনার সাইটকে জীবিত মনে করবে এবং আপনার সাইটটি গুগল সার্চে প্রথমে দেখানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

শুধু আর্টিকেল লিখলে হবেনা, বরং আপনার আর্টিকেলটি ভালো মানের হতে হবে যাতে পাঠকগণ আপনার আর্টিকেল পড়ে আনন্দ অনুভব করতে পারে।

৫। আপনার আর্টিকেলের দৈর্ঘতা যাচাই করুন

আর্টিকেল যত বড় হবে গুগল আপনার আর্টিকেলটিকে ততোবেশি প্রাধান্য দিবে। সেজন্য আপনার উচিৎ হবে কমপক্ষে ৩০০ শব্দের আর্টিকেল লেখা।

সুতারাং নিশ্চিত হন যে, আপনার আর্টিকেল টিতে সর্বনিম্ন ৩০০ শব্দের বেশি আছে।

৬। আপনার পোস্টে পূর্ববর্তী আর্টিকেল এর লিংক দিন

আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখতেছেন সে বিষয়ে যদি পূর্বে কোন আর্টিকেল লিখে থাকেন তাহলে আপনার অবশ্যই উচিৎ পূর্বের আর্টিকেল এর লিংক বর্তমান আর্টিকেল এর মধ্যে দিয়ে দেয়া।

এতেকরে আপনার আর্টিকেল এর বিষয়বস্তু পাঠকের বুঝতে আরোবেশি সহজ করে এবং আপনার আর্টিকেল এর ভিউ বেশি হবে।

৭। আপনার আর্টিকেলটি অন্য কাওকে পড়তে দিন

আপনার আর্টিকেলটি পাবলিশ বা প্রকাশ করার আগে অন্য কাওকে পড়তে দিন।

কারন আপনি কি লিখলেন সেটাতো শুধুমাত্র আপনি বুঝলেন, এখন আপনার আর্টিকেল অন্যরা কতটুকু বুঝবে সেটা যাচাই করার জন্য অন্য কাওকে দিয়ে আপনার আর্টিকেলটি পড়ান।

যদি অন্য বাক্তি আপনার আর্টিকেল টি ভালকরে বুঝতে পারে, তাহলে বুঝবেন যে আপনার আর্টিকেলটি প্রকাশ করার জন্য প্রস্তুত।

এখন আপনি আপনার কষ্টকরে লেখা আর্টিকেলটি পাবলিশ বা প্রকাশ করতে পারেন ইনশাআল্লাহ।

প্রিয় পাঠক, এতক্ষণ আমার আর্টিকেলটি ধৈর্যধরে পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে কমেন্ট এবং শেয়ার করতে ভুলবেননা। নিজে শিখুন এবং অন্যকে শিখতে সাহায্য করুন।

তোফায়েল আমিন

একটি কমেন্ট করুনঃ

Please enter your comment!
Please enter your name here