সাঁতারের উপকারিতা

সাঁতারের উপকারিতা

অন্যান্য শারীরিক ব্যায়াম গুলোর মত সাঁতার কাটাও একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যায়াম। সুস্থ থাকার জন্য অন্যান্য ব্যায়াম এর পাশাপাশি সাঁতারের উপকারিতা রয়েছে। সাঁতার একটি স্বাস্থ্যকর ক্রিয়াকলাপ যা আপনি আজীবন চালিয়ে যেতে পারেন। এটি একটি স্বল্প-প্রাভাবিত ক্রিয়াকলাপ যা এর অনেক শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্য বেনিফিট রয়েছে।

সাঁতার কাটা সব বয়সের মানুষের জন্য একটি বিনোদন মূলক ক্রিয়াকলাপ। বিনোদন মূলক সাঁতার আপনাকে স্বল্প-প্রতিক্রিয়া শীল ওয়ার্ক আউট সরবরাহ করতে পারে এবং শিথিল হওয়া এবং ভাল বোধ করার এটিও একটি ভাল উপায়।

বিনোদন মূলক সাঁতারের সাধারণ সাঁতারের স্টাইলগুলি হ'ল আর পানি সব দিক থেকে বাতাসের চেয়ে ১২ গুণ বেশি বাধা দিতে পারে বলে মানুষের শারীরিক সামর্থ্য বাড়াতে সহায়ক ব্রেস্টস্ট্রোক, ব্যাকস্ট্রোক, সাইডস্ট্রোক এবং ফ্রি স্টাইল। সাঁতারের উপকারিতা অনেক, এর মধ্যে ৮টি উপকারিতা নিচে আলোচনা করা হল।

সাঁতারের ৮টি উপকারিতা।
১.ফুসফুসকে শক্তিশালী করে।
২.হাড়ের ক্ষয়রোধ করে।
৩.অনিদ্রা দূর করে।
৪.পেশি শক্তিশালী করে।
৫.উচ্চ রক্তচাপ থেকে রক্ষা করে।
৬.হৃদরোগের ঝুকি কমায়
৭.ওজন কমাতে সাহায্য করে।
৮. কোলেস্টেরল দূর করে।

ফুসফুস উপকার

নিয়মিত ভাবে সাঁতার কাটার ফলে আমাদের ফুসফুসের কার্য ক্ষমতা বাড়ে। ফুসফুসের আয়তন বাড়ে। ফুসফুসের বাতাস ধারন ক্ষমতা বাড়ে।

হাড়ের সমস্যার সমাধান

সাঁতারের ফলে হাড়ের গঠন আরো মজবুত হয়। হাড় আরো শক্ত ও শক্তিশালী হয়। কোমরের ব্যাথার চিকিৎসায় চিকিংসকগণ সাঁতার অনুশীলন করতে বলেন। যাতের আর্থ্রাইটিস রোগ রয়েছ, তাদের ক্ষেত্রে সাঁতারের উপকারিতা অনেক।

অনিদ্রা থেকে মুক্তি

যেহেতু সাঁতার কাটা শরীর চর্চার অংশ, সেহেতু নিয়মিত সাতার কাটলে শরীর চর্চা করা হয়। তাই সাঁতার কাটলে শরীর সুস্থ থাকে। ঘুম ভালো হয়। ঘুমের ভিতর নাক ডাকার সমস্যা থাকলে, সেটাও ঠিক হয়। এবং মন ও স্বাস্থ্য উভয় ভালো থাকে।

শক্তিশালী পেশী 

ব্যায়াম করলে যেমন পেশী শক্তিশালী হয়। ঠিক তেমনি সাঁতারের ফলেও পেশী শক্তিশালী হয়। সাঁতারের মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অংশ, যেমন লিগামেন্ট, পেশী নমনীয় হয়।

উচ্চ রক্তচাপ

সাঁতারের উপকারিতা গুলোর মধ্যে, উচ্চ রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণ অন্যতম। উচ্চ রক্ত চাপ কমাতে সাঁতারের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। এছাড়াও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সাঁতারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

হৃদরোগ থেকে রক্ষা

সাঁতারের উপকারিতার মধ্যে হৃদরোগের উপকারিতা একটি। সাঁতারের জন্য কার্ডিও ভাসকুলার টিস্যু সচল থাকে, শরীরের রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে, এজন্য হৃদরোগের ঝুঁকি কম থাকে। প্রতিদিন ২০-৩০ মিনিট সাতার কাটলে, ভবিষ্যতে হৃদরোগের ঝুঁকি ৩০-৪০ অংশ কমে যায়।

ওজন কমাতে

সাতার কাটার জন্য শরীরের বাড়তি চর্বি ঝরে যায়, এর জন্য শরীরের বাড়তি ওজন ও কমে যায়। চর্বি ঝরে যাওয়ার জন্য শরীরের ফিগার আরো সুন্দর হয়।

কোলেস্টেরল দূর করতে

শরীরের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাঁতার উপকারী। সাঁতারের জন্য খারাপ কোলেস্টেরল ঝরে যায়, এবং ভালো কোলেস্টেরল জমা হয়।

যদি আপনি আকর্ষণীয় মাসল তৈরি করতে চান, তাহলে সাঁতার থেকে খুব বেশি উপকার পাওয়া যাবে না। সে ক্ষেত্রে আপনাকে অন্য ব্যায়াম বেছে নিতে হবে। তবে সাঁতারের উপকার অনেক। এতে শরীরের সব অঙ্গের যেমন ব্যবহার হয়, তেমনি হৃদপিণ্ড ও ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়ে। আর পানি সব দিক থেকে বাতাসের চেয়ে ১২ গুণ বেশি বাধা দিতে পারে বলে মানুষের শারীরিক সামর্থ্য বাড়াতে সহায়ক। তাই আমাদের জীবন সুস্থ রাখতে সাঁতারের উপকারিতা স্বীকার করতে হবে।